শুরুর কথা

বেশ কয়েক বছর আগে নিয়মিতভাবে বের হতো আমলকি নামে একটি কবিতাপত্র। এখন অনিয়মিত। ( সম্পাদক: খোকন কোড়ায়া / সাইদুজ্জামান ) সেখানেই মূলত অণুকাব্যের জন্ম। অনূর্ধ আট লাইনের কবিতা ছাপা হতো আমলকিতে।
কিন্তু দন্ত্যস রওশন লিখতেন চার লাইনের কবিতা। আমলকির একটি কবিতা এখানে উল্লেখ করা যায়

আগুন লেগেছে
আগারগাঁয়
জল ঢালো কেন
আমার গায়।

এ কবিতাটি ব্যাপক জনপ্রিয়তা লাভ করে। উচ্চারিত হতে থাকে মানুষের মুখে মুখে। অণুকাব্যের শুরুটা এমনই।

নামকরণ:
প্রথম আলোর বিদ্রূপ ম্যাগাজিনের নাম ছিল ‘আলপিন’। আলপিনে প্রায় নিয়মিত ছাপা হতো
চার লাইনের কবিতা। দন্ত্যস রওশন এই চার লাইনের কবিতার নাম দেন অণুকাব্য।
সেই থেকে শুরু…। এখন তাঁকে অণুকাব্যের জনক বলা হয়।
বর্তমানে ‘রস+আলো’তে তাঁর লেখা অণুকাব্য দেখা যায়।

অণুকাব্য
ছোট বলে এর নাম অণুকাব্য। অণুকাব্যে থাকে ব্যঙ্গ-বিদ্রূপ হাস্যরস প্রেম।
দন্ত্যস রওশন ঠাট্টা-কৌতুক করে মূলত চার লাইনে মূল বক্তব্য উপস্থাপনের চেষ্টা করেন।

দন্ত্যস কেন
আসল নাম সাইদুজ্জামান রওশন। সাইদুজ্জামানের স-কে বানান করে লেখা হয় দন্ত্যস। বাকিটা থেকে যায় আগের মতোই। হয়ে যায় দন্ত্যস রওশন।
শুরুটা ফান করে। তবে এ নামটাই স্থায়ী রূপ নেয়। সাইদুজ্জামান রওশন নামেও লেখালেখি করেন।
বর্তমানে প্রথম আলো বন্ধুসভার পাতায় সাইদুজ্জামান নামে প্রতি রোববার অণুকথা নামে লিখেন একটি মিনি কলাম।

বই

অণুকাব্য, গল্প, উপন্যাস সম্পাদিত বই মিলে মোট বইয়ের সংখ্যা ৪০।
পেশা
পেশা সাংবাদিকতা। প্রথম আলোর সঙ্গে যুক্ত।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *


7 + seven =