ক্যানসারই করবে

একবার এক অধ্যাপক তাঁর ফাঁকিবাজ ছাত্র সুমনকে জিজ্ঞেস করলেন, ‘ধরো, তোমার কাছে লাস্ট স্টেজের একজন ক্যানসারের রোগী খুব খারাপ অবস্থায় এল। তখন তুমি কী করবে?’
সুমন বলল, ‘স্যার, আমার আর কিছুই করা লাগবে না, যা করার ক্যানসার নিজেই করবে।’

মৃত ঘোষণা

আমার এক বন্ধু জিজ্ঞেস করল, ‘চিকিৎসকেরা কী দেখে কোনো লোককে মৃত ঘোষণা করেন?’
বাস্তবতা ভিন্ন হলেও বন্ধুকে বললাম, ‘অন্যরা যাই দেখুক আমি যখন দেখি পুরুষের হূদস্পন্দন বন্ধ আর স্ত্রীলোকের মুখ বন্ধ, তখন আমি তাকে মৃত ঘোষণা করে দিতে পারি।’

অণুকাব্য ডট কমে কৌতুক

রোগী এল পেটে ব্যথা নিয়ে, শিক্ষানবিশ ডাক্তার নিয়ম অনুযায়ী পেটে চাপ দিয়ে দিয়ে পরীক্ষা করছেন।
ডাক্তার ও রোগীর মধ্যে কথোপকথন—
: লাগে?
: হ্যাঁ, লাগে।
: এখানে লাগে?
: হ্যাঁ, লাগে।
: এইখানেও লাগে?
: হ্যাঁ, লাগে।
: আশ্চর্য! এখন লাগে?
: হুম, লাগে।

 

বিরক্ত হয়ে ডাক্তার বলে উঠলেন, ‘আরে ভাই কী বলেন! সবখানেই

ব্যথা লাগে?’

রোগীর জবাব, ‘না স্যার, ব্যথার জায়গাটা ছাড়া বাকিটুকুতে আরাম লাগে।’

অণুকাব্য ডট কমে কৌতুক

দুই চিকিৎসক কথা বলছিলেন। একজন বললেন, ‘আমি সপ্তাহে চার দিন বসি।’ অন্যজন বললেন, ‘আমি তিন দিন।’

পাশ দিয়ে যেতে যেতে আমি ভাবি, বাকি দিনগুলোতে কি তারা দাঁড়িয়েই থাকেন!

অণুকাব্য ডট কমে কৌতুক

মেডিকেলের খুব কম স্যারই স্টুডেন্ট লাইফে আমার আচার-আচরণ নিয়ে ভালো কিছু বলতে পেরেছেন। অথচ সম্প্রতি আমি যখন মেডিকেল থেকে ক্যারেক্টার সার্টিফিকেট তুললাম, তখন দেখলাম আমাদের অধ্যক্ষ, যিনি একজন বিখ্যাত চিকিৎসকও, তিনি লিখেছেন, আচরণগত দিক থেকে আমি ভালো। আমার চরিত্রও প্রশংসনীয়! ধন্যবাদ স্যার! বড় ডাক্তারদের ডায়াগনোসিস আসলেই পারফেক্ট!

অণুকাব্য ডট কমে কৌতুক

ঢাকা মেডিকেলের বিভিন্ন জায়গায় কর্তৃপক্ষের পক্ষ থেকে লেখা রয়েছে, ‘রশীদ ছাড়া কাউকে টাকা দেবেন না’। লেখাটা দেখি আর ভাবি, ইশ্! আমার নাম যদি মো. রশীদ হতো, তাহলে লেখাটার ঠিক পাশেই লিখে দিতাম, মি. রশীদের বিকাশ নাম্বার ০১৭১৮৬…।

আফসোস! আফসোস! আমার নাম রশীদ না!